নতুন সেনাপ্রধান এস এম শফিউদ্দিন আহমেদকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মোঃ ইদ্রিস ফরাজী

নতুন সেনাপ্রধান এস এম শফিউদ্দিন আহমেদকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মোঃ ইদ্রিস ফরাজী
ছবি: সংগৃহীত

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশের নতুন সেনাপ্রধান হচ্ছেন লেফটেন্যান্ট জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ। তিনি বর্তমান সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদের স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন।

জেনারেল হিসেবে পদোন্নতি দিয়ে আগামী ২৪ জুন থেকে তিন বছরের জন্য তাকে সেনাপ্রধানের দায়িত্ব দিয়েছে সরকার। বর্তমান সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদের স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন এস এম শফিউদ্দিন। এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার (১০ জুন) প্রজ্ঞাপন জারি করেছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। শফিউদ্দিন আহমেদ বর্তমানে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কোয়ার্টার মাস্টার জেনারেল হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

এক শুভেচ্ছা বার্তায় ইতালী আওয়ামী লীগের সভাপতি, শরিয়তপুর জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মোঃ ইদ্রিস ফরাজী দেশের নতুন সেনাপ্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদকে প্রাণঢালা শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।

নতুন সেনাপ্রধানকে অভিনন্দন জানিয়ে মোঃ ইদ্রিস ফরাজী আশা প্রকাশ করেন, এস এম শফিউদ্দিন আহমেদের নেতৃত্বে সেনাবাহিনী আরও এগিয়ে যাবে।

দেশে-বিদেশে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সুনামের কথা তুলে ধরে তিনি প্রত্যাশা করেন, সামনের দিনগুলোতে সেনাবাহিনী যাতে নিজেদের মর্যাদা আরও পেশাদারিত্বের সাথে তুলে ধরতে পারে সে বিষয়ে পদক্ষেপ নেবেন নতুন সেনাপ্রধান।

প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়, সেনাবাহিনীর কোয়ার্টার মাস্টার জেনারেল লেফটেন্যান্ট জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদকে আগামী ২৪ জুন (২০২১) বিকাল থেকে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে জেনারেল পদে পদোন্নতি প্রদানপূর্বক প্রতিরক্ষা বাহিনীগুলোর প্রধানদের (নিয়োগ, বেতন, ভাতা এবং অন্যান্য সুবিধা) আইন, ২০১৮ অনুযায়ী ওইদিন বিকাল থেকে ৩ বছরের জন্য সেনাবাহিনী প্রধান হিসেবে নিয়োগ প্রদান করা হলো।

লেফটেন্যান্ট জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ বর্তমান সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদের স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন। বর্তমান সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ আগামী ২৪ জুন অবসরে যাবেন। কিউএমজি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের আগে জিওসি, অ্যার্টডক হিসেবে কর্মরত ছিলেন শফিউদ্দিন আহমেদ।

এছাড়া তিনি জিওসি ও এরিয়া কমান্ডার, লজিস্টিকস এরিয়া, একটি পদাতিক ব্যাটালিয়ন ও বাংলাদেশ মিলিটারি একাডেমিতে (বিএমএ) ব্যাটালিয়ন কমান্ডার, একটি পদাতিক ব্রিগেড ও সেনাসদর প্রশিক্ষণ পরিদফতরের পরিচালক পদে দায়িত্ব পালন করেন।

খুলনার একটি মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ ১৯৮৩ সালের ২৩ ডিসেম্বর নবম বিএমএ লংকোর্সের মাধ্যমে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর পদাতিক কোরে কমিশন পান।